সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ছাত্রলীগের সম্মেলন উপলক্ষ্যে কাল বন্ধ থাকবে যেসব সড়ক ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার আপিল শুনানি শুরু আমি ‘বারিধারায় থাকি, এখানেও অনেক মশা’- স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিভাগীয় গণসমাবেশে সোহরাওয়ার্দী-তুরাগ ছাড়া অন্য ভেন্যুর প্রস্তাব এলে ভাববে বিএনপি বাংলাদেশকে ৬ ডিসেম্বর ১৯৭১ ভারত ও ভুটানের স্বীকৃতি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তে প্রতিবাদ ‘খেলা হবে’ আমি আজীবন স্লোগান দিয়ে যাব: ওবায়দুল কাদের নান্দাইলের উদং মধুপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সরকারী বই বিক্রি ॥ ১জন আটক একমাত্র ছেলে সড়কে প্রাণ যাওয়া তরুণের মাকে ধান কেটে দিলেন বন্ধুরা দাম বেড়ে ১২ কেজির এলপি গ্যাসের সিলিন্ডার ১২৯৭ টাকা

সরকার পতনের আন্দোলন ইরান জুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে

জিএসএন নিউজ ২৪ ডেস্ক
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৭৭ Time View

ইরানে হিজাব আইন ও পুলিশ হেফাজতে তরুণীর মৃত্যুর প্রতিবাদে জোরালো হচ্ছে বিক্ষোভ। আন্দোলনকারীদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে দেশটির চলচ্চিত্র কর্মীসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা। তারপরও বিক্ষোভ দমনে আরও কঠোর অবস্থানে নিরাপত্তাবাহিনী। বিশ্লেষকরা বলছেন, সরকার বিরোধী এই বিক্ষোভের ফলে আইনের কিছু সংস্কার আসলেও ইসলামিক রিপাবলিক অব ইরানের নীতি কাঠামোয় কোনো পরিবর্তন আসবে না।

১৯৭৯ সালে ইসলামী বিপ্লবের মধ্য দিয়ে ইরানে ক্ষমতায় আসে আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। চালু করেন কঠোর শরিয়া আইন। গেল ৪ দশকে অনেকেই এ আইনের প্রতিবাদ জানালেও বড় ধরনের বিক্ষোভ এই প্রথম।

বিশ্লেষকরা জানান, বহু বছরের দানা বাধা ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে পুলিশি হেফাজতে ২২ বছরের তরুণী মাসা আমিনির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে। রাজপথে নামে নারীরা। পুলিশের সামনেই হিজাব পুড়িয়ে প্রতিবাদ জানান তারা। নারীদের সঙ্গে প্রথমবারের মতো এ আন্দোলনে যোগ দেন পুরুষরাও।

পুলিশের গুলিও থামাতে পারেনি আন্দোলন। বরং খামেনি সরকারের পতনের দাবি ছড়িয়ে পড়ছে ইরানজুড়ে।

আন্দোলনকারীদের দাবির প্রতি সমর্থন জানাচ্ছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা। জাতিসংঘের নারী বিষয়ক সংস্থা- ইউএন ওমেন বিবৃতিতে বিক্ষোভকারীদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে। মানবাধিকার কাউন্সিলও নিপীড়ন বন্ধ ও ইন্টারনেট সেবা চালুর আহ্বান জানিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়েছেন দেশটির চলচ্চিত্র কর্মীরা।

এ অবস্থায় প্রশ্ন উঠেছে চলমান বিক্ষোভে কি ক্ষমতাসীনরা হটবে? বিশ্লেষকরা বলছেন, এভাবে বিক্ষোভ চলতে থাকলে কিছু সংস্কার হতে পারে। তবে এই আন্দোলন ইসলামিক রিপাবলিক অব ইরানকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতে পারবে না।

তাদের মতে, মাসা আমিনির প্রজন্ম ইরানকে সেক্যুলার দেখতে চায়। যেখানে রাষ্ট্র তার নাগরিকের অধিকারকে সুরক্ষা দেবে।

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love
  •  
  •  
  •  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2022
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-gsnnews