সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আওলাদ, সম্পাদক সাত্তার

জিএসএন নিউজ ২৪ ডেস্ক
  • Update Time : বুধবার, ২৫ মে, ২০২২
  • ৯৬ Time View

২৩ বছর আগের কমিটি দিয়ে চলছে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ। দীর্ঘদিন পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মীদের এমন অভিযোগের পর অবশেষে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বুধবার (২৫ মে) কিশোরগঞ্জ শহরের পুরাতন স্টেডিয়ামে সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীদের অংশগ্রহনে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি ঘোষনা দেন আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কৃষি মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর্জা আজম সহ সম্মেলনে অতিথি হিসেবে আগত কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের অন্যান্য নেতাকর্মীবৃন্দ।

দীর্ঘদিন পর পুরাতন স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আতাউর রহমান এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের কৃষিমন্ত্রী, ড. আব্দুর রাজ্জাক। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সংসদ সদস্য মির্জা আজম, স্থানীয় সংসদ সদস্য সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি, আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক শামসুন নাহার চাঁপা, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি, সদস্য রিয়াজুল কবীর কাওছার, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু, সদস্য মসিউর রহমান হুমায়ুন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. জিল্লুর রহমান উদ্বোধক ও সাধারণ সম্পাদক এম এ আফজাল প্রধান বক্তা ছিলেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ১৩টি উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে পুরনো কমিটি দিয়ে চলছিল সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ। ১৯৯৭ সালের ২ এপ্রিল এই উপজেলায় কমিটি গঠন হয়। ২৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে এই উপজেলায় আওয়ামী লীগ পুরাতন কমিটি নেতৃত্ব চলছিল। দীর্ঘদিন এই কমিটি থাকার পর, দলের সুদিনেও এই উপজেলায় সংগঠন গোছাতে পারেন নি নেতারা। বরং উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলে বিভেদ ও কোন্দল প্রকাশ্য রূপ নিয়েছে।

২৩ বছর দলের মধ্যে থেকে মিছিল মিটিং করে শ্রম দেয়া পদ প্রত্যাশি নেতাকর্মীদের একাংশের অভিযোগ ছিল কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শরীফ আহমেদ সাদী দুই ধারায় বিভক্ত হয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে তৃণমূলে।

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love
  •  
  •  
  •  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-gsnnews