বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০২:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বাসার বিছানায় স্ত্রীর গলাকাটা লাশ, ফ্যানে ঝুলছিল স্বামী বিএনপি ২৬ শর্তে সোহরাওয়ার্দীতে গণসমাবেশের অনুমতি পেল গত পাঁচ বছরে মাংসের দাম বেড়েছে দ্বিগুণেরও বেশি নান্দাইলের ধরগাঁও গ্রাম থেকে ৩টি গরু হারিয়ে যাবার অভিযোগ ॥ থানায় জিডি মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে সমম্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন কর্মশালা অনুষ্ঠিত সরাসরি রেমিট্যান্স আনার সুযোগ পেলো মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠান, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সার্কুলার জারি নান্দাইলের পল্লীতে বাড়িঘরে হামলা ॥ টাকা সহ গরু লুট মহিলা সহ আহত ৫ ॥ ১০ জনের নামে মামলা নান্দাইলের পল্লীতে বাড়িঘরে হামলা ॥ টাকা সহ গরু লুট মহিলা সহ আহত ৫ ॥ ১০ জনের নামে মামলা ৩৮৩ পদে কারা অধিদপ্তরে নিয়োগ, দিতে হবে ডোপ টেস্ট বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে আওয়ামী লীগ ও মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে হবে : ওবায়দুল কাদের

কৃষককে পাটবীজ প্রদানের দেড় মাস পর প্রশিক্ষণ, ৫০০ টাকার লোভে অনেকেই সেজেছে কৃষক!

আলম ফরাজী
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৪৬ Time View

প্রতি কৃষককে ২শ গ্রাম করে পাটবীজ দেওয়া হয়েছে প্রায় দেড় মাস আগে। আর দেড় মাস পর সেই পাট বীজ জমিতে ফেলে কীভাবে উন্নতমানের বীজ উৎপাদন করা যাবে সেই কায়দা শেখানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হলো আজ রবিবার সকাল ১০টার দিকে। এই প্রশিক্ষণের আয়োজন করেছে উপজেলা পাঠ উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়।

রোববার সকাল ১১টার দিকে প্রশিক্ষণস্থল উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে গিয়ে দেখা যায়, জেলা পর্যায়ের অনেক কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু সেখানে কৃষকের বেশে অনেকেই প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন। প্রশিক্ষণ গ্রহীতার তালিকায় উপজেলার সরকারি কার্যালয়ের অফিস সহায়কের নামও রয়েছেন।
উপজেলা পর্যায়ের একটি সরকারি কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মো.জামাল উদ্দিন ও আবু বক্কর সিদ্দিকের নামও প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীদের তালিকায় রয়েছে।

মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে জামাল উদ্দিন জানান, তিনি ময়মনসিংহ সদরের দাপুনিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা। নান্দাইলে চাকরি করেন। তিনি পাট বীজ পাননি। তবে তার নামটি একদিনের প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছেন।

দেড় মাস আগে বীজ প্রদান করার পর এখন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হলে বীজ উৎপাদনকারীদের কী লাভ হবে- এমন প্রশ্নের উত্তরে উপজেলা পাট উন্নয়ন কার্যালয়ের কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, বৃষ্টির জন্য কৃষকরা জমিতে বীজ ফেলতে পারেননি। তাছাড়া যথাসময়ে অর্থ বরাদ্দ না আসায় প্রশিক্ষণ আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। কৃষক পরিচয়ে অন্যদের প্রশিক্ষণ প্রদান করার বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভাই চাইলে আগামীতে আপনাদেরও রাখা হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মোট প্রশিক্ষণার্থী ১০০ জন। প্রতিজনকে ৫শ টাকা করে ভাতা দেওয়া হয়েছে। এই টাকা পেতে কৃষক ছাড়াও সাধারণ লোকজনেরও নাম ওঠানো হয় তালিকায়। আনেছা বেগম নামে এক নারী এসেছেন উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের তারাপাশা থেকে। জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সদরে আইছলাম। এক নেকা কইলো এইনো থাকলে ৫শ টেহা পাওয়া যাইবো, তাই…। এখানে কি হবে জানতে চাইলে বলেন, মনে অয় গরুরে কিবায় খাওয়াইবো এইডা শিহাইবো।’

সূত্র: কালের কন্ঠ

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love
  •  
  •  
  •  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2022
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-gsnnews