শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
১০ ডিসেম্বর কী হচ্ছে, লোক মুখে সংশয় ও শঙ্কা এটাই কি ছাত্রলীগ! এমন ছাত্রলীগ চাই না: ওবায়দুল কাদের ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক কর্তৃক নান্দাইল ডিসি পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন এক যুবকের প্রেমে পড়ে পাঁচ তরুণীর মারামারি আদালত প্রাঙ্গণ থেকে জঙ্গি ছিনতাই সেই ঈদী অমি ফের রিমান্ডে দীর্ঘ ৬ বছর পর ময়মনসিংহে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন। এ নিয়ে ময়মনসিংহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক উচ্ছ্বাস-উদ্দীপনা এবং উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। নান্দাইল উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মেজর জেনারেল (অব:) আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম শাহান প্রকৃতি রক্ষায় বিশ্বকে অর্থায়ন দ্বিগুণ করতে হবে : জাতিসংঘ একদিন পরও মামলা হয়নি প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা নান্দাইল উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সমাপ্ত

ঠাকুরগাঁওয়ে ‘ডিজিটাল ঢেঁকি’তে আগ্রহ বাড়ছে

জিএসএননিউজ ২৪ ডেস্ক
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২১
  • ১২৪ Time View

ঢেঁকিছাঁটা চালে পুষ্টিমান বেশি থাকে। খেতেও সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যসম্মত। প্রযুক্তিগত উন্নয়নের এই যুগে মেশিনের দাপটে বিলুপ্ত হয়ে গেছে ঢেঁকি। কিন্তু তাই বলে কি ঢেঁকিছাঁটা চাল পাওয়া যাবে না? এই প্রশ্নেরই জবাব তৈরি করেছেন ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার ভোরনিয়া গ্রামের যুবক ওমর ফারুক।

তিনি তৈরি করেছেন ডিজিটাল ঢেঁকি। প্রযুক্তি ও আধুনিকতার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে টিকে থাকতে বিলুপ্ত প্রায় প্রাচীন ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনছেন তিনি। ডিজিটাল ঢেঁকির মাধ্যমে ধান ভাঙিয়ে চাল তৈরি করে বাজারজাতও করেছেন। তার এই ঢেঁকিছাঁটা চাল বেশ সাড়া ফেলেছে এলাকায়। এই পদ্ধতির মাধ্যমে অসংখ্য মানুষের কর্মসংস্থান হবে বলে মনে করছেন ওমর ফারুক।

রানীশংকৈলের ভোরনিয়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে ওমর ফারুক। তিনি বৈদ্যুতিক মটরের মাধ্যমে ৬ মাস আগে স্থাপন করেন ‘ডিজিটাল ঢেঁকি’। প্রাচীন ঢেঁকিতে ধানের তুষ ছাড়িয়ে চাল বের করা ছিল খুব কষ্টসাধ্য ও সময়সাপেক্ষ। কিন্তু ওমর ফারুকের ডিজিটাল ঢেঁকিতে ধানভাঙা খুবই সহজ ও স্বল্প সময়ে অধিক চাল তৈরি হয়। সনাতন পদ্ধতিতে ঢেঁকিতে এক প্রান্তে কাউকে পা দিয়ে বার বার চাপ দিতে হয়। আর ওমর ফারুকের ডিজিটাল ঢেঁকিতে বৈদ্যুতিক মটরের মাধ্যমে লোহার হাতল দিয়ে একইভাবে চাপ দিতে হয়। এতে সময় ও শ্রম দুটোই কম ব্যয় হয়। এই ঢেঁকিতে দিনে ৫ থেকে ৬ মণ ধান ভাঙতে পারেন বলে শ্রমিক ও মেশিন অপারেটর মানিরুল ইসলাম জানান।

ওমর ফারুকের ‘ঢেঁকিছাঁটা চালের’ ফাইবার থাকছে অটুট, ঠিক সনাতন পদ্ধতির ঢেঁকিছাঁটা চালের মতোই বজায় থাকছে পুষ্টিমান। এ কারণে ওমর ফারুকের ডিজিটাল ঢেঁকির চালের চাহিদা বেড়েছে।

অন্যদিকে স্থানীয় এলাকাবাসী শহিদুল ইসলাম জানান, বর্তমানে বাজারে আমরা যে চাল খাচ্ছি তার চেয়ে ঢেঁকিছাঁটা চাল খেতে সুস্বাদু। এ ছাড়াও স্থানীয় আবুল হোসেন বলেন, আগে পুষ্টিসমৃদ্ধ ঢেঁকিছাঁটা চাল খেতাম। এখনো ঢেঁকিছাঁটা চালের চাহিদা আছে।

প্রযুক্তিগত বা কারিগরি সহায়তা পেলে বৃহদাকারে এই শিল্পের বিকাশ ঘটাতে পারবেন বলে জানান ওমর ফারুক। এ বিষয়ে নারগুন উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবদুল জলিল বলেন, ওমর ফারুক সেই ঢেঁকিকে আবার জনপ্রিয় করে তুলেছেন। এই ধারা অব্যাহত রাখা হলে আমরা পুষ্টিসমৃদ্ধ চাল খেতে পারব।

Print Friendly, PDF & Email
Spread the love
  •  
  •  
  •  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2022
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-gsnnews