শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
যেসব খাবার কাঁচা খাবেন না করোনা গ্লোব বায়োটেকের টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে আগ্রহী নেপাল করোনা : শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে টিউশন ফি ছাড়ের নির্দেশনা আসছে কেন্দুয়ায় দুটি চোরাই গরু সহ ২জনকে আটক করল পুলিশ সমুদ্র বন্দর গুলোকে : ৪ নম্বর হুশিয়ারি সংকেত বিশ্বের সবচেয়ে মোটা ব্যক্তিকে হাসপাতালে আনা হলো ক্রেনে গোপালপুরে গণধর্ষণের শিকার কলেজছাত্রীর পরিবারের সঙ্গে কাদের সিদ্দিকীর সাক্ষাৎ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সৃষ্টিতে শেখ হাসিনা নজীরবিহীন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন – শ ম রেজাউল করিম মুজিববর্ষ উপলক্ষে চরমোনাই ভূমি অফিসের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপণ নান্দাইলে নিরাপদ সড়ক চাই বর্নাঢ্য র‌্যালীর উদ্ধোধন করেন এমপি তুহিন

নান্দাইলে শেরপুর ইউপি’র উপ-নির্বাচনে বিএনপি বিহীন নৌকার বিপরীতে স্বতন্ত্র তিন প্রার্থীর দৌড়ঝাপ ॥

শাহজাহান ফকির, স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ৯৩ Time View

[সুষ্ঠ ভোট গ্রহনের আকাঙ্খায় সাধারন জনগণ]

আসছে ২০শে অক্টোবর ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার ১০নং শেরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যানের শূন্য পদ পূরণে হতে যাচ্ছে উপ-নির্বাচন। এই উপনির্বাচন কেন্দ্র করে  চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হিসাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র প্রার্থী বিহীন আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের বিপরীতে স্বতন্ত্র তিনজন প্রার্থীর ব্যাপক দৌড়ঝাপ চলছে। নান্দাইল উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানাগেছে, উক্ত ইউনিয়নের মোট ২০ হাজার ২শত ৫৬জন ভোটারের মধ্যে ১০ হাজার ৪শত ১২জন পুরুষ এবং ৯ হাজার ৮শত ৫৩জন মহিলা ভোটার রয়েছে। ভোট গ্রহনের জন্য রয়েছে ৯টি কেন্দ্রে মোট ৪৬টি ভোট কক্ষ।

ইউপি নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকা প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক, নান্দাইল সরকারি শহীদ স্মৃতি আদর্শ ডিগ্রী কলেজের সাবেক ভি.পি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান (মুক্তিযোদ্ধার সন্তান) মো. মোয়াজ্জেম হোসেন মিল্টন ভূইঁয়া। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী ও কৃষকলীগ নেতা এম.বজলুর রহমান বজলু, চশমা প্রতীকে সমাজ সেবক কফিল উদ্দিন ও মোটর সাইকেল প্রতীকে সমাজ সেবক দলিল লেখক হারুন অর রশিদ সরকার।

চেয়ারম্যান প্রার্থীরা ভোটারদের মন জয় করতে ইউনিয়নের এক প্রান্ত হতে অন্য প্রান্তে চলছে দিন-রাত গণসংযোগ ও মতবিনিময়। নির্বাচনী মার্কাযুক্ত লিফলেট, পোস্টার, ফেস্টুন ও ব্যানারে ইউনিয়নের চারিদিক নতুনরূপে সেজে উঠেছে। ইউনিয়নের বিভিন্ন হাট-বাজারের চায়ের স্টল ও দোকানপাটে চলছে পছন্দের প্রার্থীদের নিয়ে নানা গুঞ্জন। কে হবে শেরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তাই নিয়ে চলছে প্রার্থীদের যোগ্যতা ও নির্বাচনী ইশতিহার তথা প্রতিশ্রুতির কথার মাপকাঠি। তবে এই নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনিত প্রার্থী মোঃ জিয়া উদ্দিন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করায় নির্বাচনে মাঠ চাঙ্গা করে রেখেছেন নৌকা প্রতীক। নৌকা প্রতীকের পক্ষে মাঠে গণসংযোগ ও পথসভা করছেন উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও পৌর ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। করোনার কারনে তেমন জনজমায়েত বা জনসমাবেশ হতে দেখা যাচ্ছেনা। তবে প্রার্থীদের সমর্থিত লোকজন নির্বাচনী এলাকার জনগণের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করে স্ব-স্ব পছন্দের প্রার্থীর জন্য ভোট চাইতে দেখা যাচ্ছে। শুধু মাত্র চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন হওয়ায় সাধারন জনগণের মাঝে তেমন নির্বাচনের হাওয়া লাগেনি।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক কয়েকজন ভোটার জানান, “নিজের ভোট নিজে দিতে পারলে ভাগ্যবান মনে করবো এবং আমাদের পছন্দের প্রার্থীকেই চেয়ারম্যানের চেয়ারে বসাতে পারবো। তবে ভোট গ্রহন সুষ্ট হওয়ার আকাক্সক্ষায় দিন গুনছি”। এদিকে নির্বাচনী এলাকা ঘুরে ঘুরে ভোট সংগ্রহে নিজ প্রার্থীর জয় নিশ্চিত করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে স্ব-স্ব প্রার্থীরা সমর্থিত ব্যাক্তিরা।

এ বিষয়ে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী মো. মোয়াজ্জেম হোসেন ভূইয়া মিল্টন জানান, “আমি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। আমার হাতে নৌকা প্রতীক তুলে দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী জনেনেত্রী শেখ হাসিনা ও সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিনের প্রতি চিরকৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। আমি নিশ্চিত, আমার নির্বাচনী এলাকার সাধারন জনগণ উন্নয়নের মার্কা তথা নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে জয়যুক্ত করে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করে তুলবে।”

আনারস প্রতীক প্রাপ্ত স্বতন্ত্র প্রার্থী কৃষকলীগ নেতা এম. বজলুর রহমান বজলু জানান, “আমার নির্বাচনী এলাকার মানুষের সু:খে- দু:খে সবসময় পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। সাধারন মানুষের অধিকার আদায়ে কাজ করে যাচ্ছি। আমার গ্রাম, আমার শহর এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চাই। আশা করছি জনগণ ২০শে অক্টোবর আনারস প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে জয়যুক্ত করতে ইনশাল্লাহ।”

অপরদিকে চশমা প্রতীকের কফিল উদ্দিন ও মোটরসাইকেল প্রতীকের হারুন অর রশিদ জানান, ভোট কেন্দ্র দখল ও রাতের আধারে ভোটচুরি না হলে এবং প্রতিটি কেন্দ্রেই ভোট গণনা করে সাথে সাথে সাধারন জনগণের রায় ঘোষিত হলে, জনগণ তাদের পছন্দের প্রার্থীকে শেরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে জয়যুক্ত করবে ইনশাল্লাহ।” এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ২০শে অক্টোবর নির্বাচনে প্রতিটি কেন্দ্রে নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন বলে তারা জানান। নির্বাচনে সাধারন মানুষের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিবার বিষয়টি এখন সময়ের অপেক্ষামান মাত্র।

Total Page Visits: 138 - Today Page Visits: 1

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-gsnnews