মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ০৯:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

রাজাপুরে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল আত্মসাতের অভিযোগ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১ মে, ২০২০
  • ৫ Time View

জিএসএন নিউজ ডেস্ক: ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার শুক্তাগড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শুক্তাগড় ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে তার নিজের নামসহ স্ত্রী ও ভাইগ্নার নামে এবং মৃত ব্যক্তির নামে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির (১০ টাকা দরের) কার্ড দিয়ে চাল উত্তোলন করে আত্মসাৎ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় বিক্ষুব্ধ জনতা ও সুবিধা বঞ্চিতরা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার কেওতা বাজার এলাকায় এ কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে সুবিধা বঞ্চিতরা ইউএনওর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ঘণ্টাব্যাপি এ কর্মসূচিতে সুবিধা বঞ্চিতরা অভিযোগ করে জানান, স্থানীয় কেওতা গ্রামের ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান ২০১৬ সালে ওই এলাকার সুবিধা বঞ্চিত ১৩৭ জনের নামে হতদরিদ্রদের জন্য খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় নামের তালিকা প্রণয়ন করে, তার মধ্যে নিজের এবং স্ত্রীসহ আত্মীয়স্বজনের নাম অন্তর্ভুক্ত করেছে।

এছাড়া ১৩৭ জনের নাম থাকলেও হাতে গোণা কয়েক ব্যক্তিকে চাল দিলেও বাকিদের নানা ত্রুটির অযুহাতে কার্ড জমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চাল আত্মসাত করে আসছিলো। এমনকি ১০ ব্যক্তি জানেনই না তাদের নামে কার্ড ইস্যু করা হয়েছে।

এছাড়া একই ব্যক্তির নাম ২ বার এবং মৃত ব্যক্তির নামেও চাল উত্তোলন করে আত্মসাত করে আসছিলো।

অভিযোগে জানা গেছে, হুমায়ন কবির (কার্ড নং ২৫৩), ফরিদ (কার্ড নং ১৬১), গোফরান (কার্ড নং ২৪২), মন্নান (কার্ড নং ১৬৮), রোজিনা (কার্ড নং ২১৯), জোবেদা (কার্ড নং ২১২), শুক্কুর (কার্ড নং ২২৬), হারুন (কার্ড নং ২৫২), মাসুম (কার্ড নং ২৫৯) ও ফিরোজ আলম (কার্ড নং ২৩৪) এদের নামে কার্ড ইস্যু করে দীর্ঘদিন সুবিধা বঞ্চিতদের না জানিয়ে তা আত্মসাত করে মেম্বর মনিরুজ্জামান।

এছাড়া মৃত ৩ ব্যক্তি মতলেব (কার্ড নং ২৪৯), হাবিব (কার্ড নং ১৫১) ও নরুল ইসলাম (কার্ড নং ১৫৪) এবং হান্নান নামের একই ব্যক্তির নামে ২টি কার্ড (কার্ড নং ২৫৩ ও ২৬০) ইস্যু করে তাদের নামের চাল দীর্ঘদিন আত্মসাত করে আসছে ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান।

ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, চালের মান খারাপ এমন অভিযোগ তুলে অনেকেই তার বাড়িতে কার্ড ফেরৎ দিয়ে গেছেন। যা এখন তাদের ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে। তবে নিজের ও স্ত্রীর নামের কার্ডের বিষয়ে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

এ বিষয়ে ইউএনও সোহাগ হাওলাদার জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে। চাল ও ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: রায়তা-হোস্ট
raytahost-gsnnews