প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপুমনি এম.পি কেন্দুয়ায় ষোলবছর পর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আগামীকাল

রাজনীতি

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি : বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দুয়া উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন শনিবার সকাল ১১ টায় উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে। ১৬ বছর পর এই সম্মেলনকে কেন্দ্র তৃণমূল নেতাকর্মীদের মাঝে প্রাণচাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে বিশাল আকারের প্যান্ডেল ও উপজেলা সদর। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপুমনি এম.পি।

আওয়ামীলীগ সহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠন ডা. দীপুমনি এম.পি সহ অন্যান্য অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে নির্মান করেছে প্রায় অর্ধশত তোরণ। দলের বাইরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও নান্দনিক তোরণ নির্মানে করেছে। জাতীয় সংগীতের সুরে এই সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন নেত্রকোনা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মতিউর রহমান। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখবেন মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নেত্রকোনা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু এম.পি। কেন্দুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক এন.এ.এম জাহাঙ্গীর চৌধুরীর পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখবেন নেত্রকোনা-৩ আসনের চারবারের নির্বাচিত সাবেক এম.পি এম.জুবেদ আলী এডভোকেট, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন সিরাজ, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল এম.পি, সদস্য মির্জা আজম এম.পি, মারুফা আক্তার পপি ও রেমন্ড আরেং। আগামী দিনের নেতৃত্বে কে আসবেন এ নিয়ে তৃণমূল নেতাকর্মীরা ব্যস্ত রয়েছেন। সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন দুই যুগেরও বেশি সময়ধরে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নূরুল ইসলাম, নেত্রকোনা জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি কেন্দুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক এডভোকেট আব্দুল কাদির ভূঞা ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক প্রাক্তন গণপরিষদ সদস্য মরহুম হাদিস উদ্দিন চৌধুরীর ছেলে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এন.এ.এম জাহাঙ্গীর চৌধুরী। অপরদিকে সাধারন সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন নেত্রকোনা জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য কেন্দুয়া পৌর মেয়র সাবেক ছাত্র নেতা মোঃ আসাদুল হক ভূঞা, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সাবেক ছাত্র নেতা মোঃ হুমায়ুন কবীর চোধুরী ও ছাত্র নেতা আব্দুল্লাহ আল বাকী। তবে সভাপতি পদে ৩ জনই কাউন্সিলরদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন। কাটাচ্ছেন নির্ঘুম রাত। নিজ নিজ কৌশলে চেষ্টা করছেন তাদের সমর্থন আদায়ের। কাউন্সিলররাও সব প্রার্থীদের অতীতের সব কর্মকান্ড তুলে আনছেন আলোচনার টেবিলে। অবশেষে কে হবেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তা এখনও কেউই বলতে পারছেন না। এছাড়া সাধারন সম্পাদক হিসেবে ৩ জন প্রার্থী হলেও লড়াই হবে দ্বিমুখী। পৌর মেয়র সাবেক ছাত্রনেতা মোঃ আসাদুল হক ভূঞা নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচার প্রচারনায় অনেক এগিয়ে রয়েছেন। তবে সাবেক ছাত্রনেতা পাইকুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ হুমায়ুন কবীর চৌধুরীও প্রাণপন চেষ্টা চালিয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক ওয়াহিদুজ্জামান খান পাঠান জানান, মোট ৫০৬ জন কাউন্সিলর তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। তাদের ভোটাধিকারের মাধ্যমেই নির্বাচিত হবে আগামী দিনের নতুন নেতৃত্ব। এদিকে এমপি অসীম কুমার উকিল শুক্রবার সকালে মঞ্চ এলাকা পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি বলেন, আমি চাই সুষ্ঠ সম্মেলনের মাধ্যমে বেড়িয়ে আসবে নতুন নেতৃত্ব।

70total visits,1visits today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *