শুনতে অবাক লাগে সেতুতে দাঁড়ালে নারীর গর্ভে সন্তান আসে

লাইফস্টাইল

জিএসএন ডেস্ক: সবাই একে বলেন ‘শয়তানের সেতু’। শুনতে অবাক লাগলেও ঘটনা সত্য। পর্তুগালে এমনই লোক কাহিনি প্রচলিত আছে। যে সেতুতে দাঁড়ালে নিঃসন্তান নারীও গর্ভবতী হন। এমনকি সেতুতে উঠে পেছনে তাকালে মৃত্যু অনিবার্য। এমন রহস্যময় সেতুর গল্প শুনবেন আজ।

একে শয়তানের কার্যকলাপই বলা যায়। শয়তান ও তার অনুসারীর একটি কাহিনি। যে কাহিনি এখনো আতঙ্কিত করে পর্তুগালের এক বিস্তীর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের। দেশটির মন্টেলেগ্রি এবং ভেইরা ডি মিনহোর সীমানায় রয়েছে একটি সেতু। যাকে বলা হয় ‘শয়তানের সেতু’। রাত হলে সেতুর আশেপাশে যান না কেউ।

শোনা যায়, এটি শয়তানের হাতে বানানো। যা মধ্যযুগে বানানো হয়। খরস্রোতা রাবাগাও নদীর ওপর পাথর দিয়ে তৈরি করা হয়েছে সেতুটি। কোন এক ঝড়ের রাতে এক ডাকাত পাহাড়-জঙ্গল পেরিয়ে রাবাগাও নদীর কাছে এসে আটকে যায়। সে সময় ডাকাতটি শয়তানের নামে প্রার্থনা শুরু করে।

bridge-in

শয়তান তখন ভক্তের ডাকে সাড়া দিয়ে সেখানে হাজির হয়। ডাকাতের অনুরোধে খরস্রোতা নদীর ওপর একটি সেতু বানিয়ে দেয়। বিনিময়ে মৃত্যুর পর সেই ডাকাত নিজের আত্মা শয়তানকে অর্পণ করার প্রতিশ্রুতি দেয়।

শুধু তা-ই নয়, সেতুটি পার করার আরও একটি শর্ত ছিল। এটি পার হওয়ার সময় পেছনে তাকানো যাবে না। তাহলে মুহূর্তে সেতু উধাও হয়ে যাবে। তাই পেছনে না তাকিয়ে এক দৌড়ে সেতু পার হয়ে যায় ডাকাত। এর কয়েক বছর পর কঠিন অসুখে পড়ে সে।

তখনই মনে পড়ে শয়তানকে দেওয়া প্রতিশ্রুতির কথা। ফলে একজন ধর্মযাজককে নিজের সব কথা জানায়। তারপর ওই যাজক ভিখারি সেজে রাবাগাও সেতুতে হাজির হন। তিনিও শয়তানের নামে প্রার্থনা শুরু করেন। আবারও শয়তান আসে।

bridge-in

যাজক শয়তানকে নিজের আত্মার আহুতি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। পরিবর্তে নদীর ওপর সেতুটি আবার তৈরি করে দিতে অনুরোধ করেন। তার কথামতো শয়তান সেতুটি তৈরি করে। কিন্তু তারপর ওই যাজক শয়তানের ওপর পবিত্র পানি ছিটিয়ে তাকে ধ্বংস করে দেন।

এই লোককথা আশপাশের এলাকায় খুবই প্রচলিত। তাই রাত হলে কেউ আর সেতুর দিকে যান না। একমাত্র যে নারীর সন্তান হয় না বা অন্তঃসত্ত্বার সন্তানের কোন সমস্যা থাকলে, তারাই মাঝরাতে সেতুতে আসেন।

স্থানীয়দের বিশ্বাস, সেতুতে অপেক্ষা করলে নিঃসন্তান দম্পতির কোলে সন্তান আসে। অপেক্ষা করার সময় কোন ব্যক্তি সেতুর ওপর দিয়ে যান, তিনি দড়ি বেঁধে গ্লাসে করে পানি তুলে ওই নারীকে দিলেই দম্পতির কোলে সন্তান আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *