1. admin@www.gsnnews24.com : admin : সাহিত্য বিভাগ
শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১০:৪৬ অপরাহ্ন

আ.লীগ আসন বুঝে মনোনয়ন দেওয়ার পরিকল্পনা  নির্বাচনে টানা বিজয়ের ছক কষছে, নৌকার অনুকূলে গণজোয়ার সৃষ্টির কৌশল

  • Update Time : বুধবার, ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩
  • ১০৭ Time View
ফাইল ছবি

টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় রয়েছে আওয়ামী লীগ। আগামী বছর সংসদ নির্বাচন হওয়ার কথা। ক্ষমতা ধরে রাখতে টানা চতুর্থবারের মতো বিজয়ের জন্য ‘নির্বাচনী ছক’ কষছে ক্ষমতাসীন দলটি। এই লক্ষ্যে নৌকা প্রতীকে গণজোয়ার সৃষ্টির প্রচেষ্টায় রয়েছেন দলের উচ্চপর্যায়ের নেতারা। বিভাগীয় সমাবেশে যোগ দিচ্ছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তৃণমূলপর্যায় পর্যন্ত দলকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি নৌকার অনুকূলে ভোটারের জোয়ার সৃষ্টির কৌশল নিয়ে এগোচ্ছে দলটি।

 

উচ্চপর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সাধারণ নির্বাচনে আসন বুঝে দলীয় প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়ার পরিকল্পনা করছে আওয়ামী লীগ। বিশেষ করে বর্তমান সংসদ সদস্যদের মধ্যে বিতর্কিতদের ঝেরে ফেলে জনপ্রিয় প্রার্থীদের মনোনয়ন দেওয়া হবে। এরই মধ্যে দলের একাধিক যৌথসভায় এমন বার্তা দিয়েছে দলীয় হাইকমান্ড। নৌকা প্রতীকে জনপ্রিয় প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য মাঠ জরিপের কাজও শুরু করা হয়েছে। টানা চতুর্থবারের মতো বিজয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে এবার প্রতিটি আসনেই শক্তিশালী, জনপ্রিয় ও স্বচ্ছ ইমেজের প্রার্থী মনোনীত করা হবে। একই সঙ্গে কোন কোন আসনে জোটের প্রার্থীদের বিজয়ের সম্ভাবনা রয়েছে তারও গোপন জরিপ চালানো হচ্ছে দলের নীতিনির্ধারক পর্যায় থেকে। তবে টানা তিন মেয়াদে বিতর্কিত, জনবচ্ছিন্ন, কোন্দল-দ্বন্দ্বে জড়িত মন্ত্রী-এমপিদের অনেকেরই আগামী নির্বাচনে মনোনয়নবঞ্চিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এবার নতুন মুখ দেখা যেতে পারে। আর এ গোপন মাঠ জরিপের কাজ স্বয়ং মনিটরিং করছেন দলটির প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পাশাপাশি নির্বাচন সামনে রেখে রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রামের নামে কোনো ধরনের অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা হলে বিএনপিকে এক বিন্দুও ছাড় না দেওয়ার কৌশলও রয়েছে।

 

দলীয় সূত্র মতে, সম্প্রতি বেশ কটি বিভাগীয় সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ। সমাবেশগুলোতে যোগ দিয়েছেন দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা। বিভাগ অনুযায়ী বার্তা দিয়েছেন তিনি। দল টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থাকার ফলে দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে তার ফিরিস্তি তুলে ধরেছেন তিনি। একই সঙ্গে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে দেশের যে চিত্র ছিল তাও তুলে ধরেছেন। বিশেষ করে ওই সময় দেশে জঙ্গি তৎপরতা এবং অনিয়মের ফিরিস্তি তুলে ধরেছেন। প্রধানমন্ত্রী যেসব সমাবেশে যোগ দিয়েছেন তাতে নেতাকর্মী সমর্থকদের ঢল নেমেছে। সমাবেশে তিনি আগামীতে নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য তাদের ওয়াদা করান। ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট চাওয়ার নির্দেশনাও দিয়েছেন।

সর্বশেষ রবিবার (২৯ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা রাজশাহী মহানগরীতে দলীয় সমাবেশে ভাষণ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ কখনো পলায়ন করে না বরং জনগণের সঙ্গে থেকে তাদের উন্নতির জন্য কাজ করে। তিনি ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত, সমৃদ্ধ এবং ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার জন্য আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘আগামীতে নির্বাচন আসবে, এ বছরের শেষে বা আগামী বছরের শুরুতে। সেখানে আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন কি না, ওয়াদা চাই।’ সমবেত জনতা এ সময় দুই হাত তুলে সমস্বরে ওয়াদা জানান।

 

বিএনপির কঠোর সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ প্রধান বলেন, আমরা মানুষের জন্য কাজ করি। আর বিএনপি কী করে? মানুষ খুন করা, অগ্নিসন্ত্রাস করা তাদের কাজ। আওয়ামী লীগ জনগণকে দিতে আসে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে জনগণ পায়। আমরা চাই আমাদের দেশ এগিয়ে যাক। দেশকে আমরা উন্নত করতে চাই।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, এর মাধ্যমে দলীয় নেতাকর্মীরা চাঙ্গা হবে এবং তৃণমূলে দল হবে শক্তিশালী। নির্বাচনে বিএনপি আসছে নাÑ এমনটা গণ্য করে সাংগঠনিক ও নির্বাচনী প্রস্তুতিতে গাফিলতি- সেটা করবে না আওয়ামী লীগ। বিএনপি নির্বাচনে এলে তিন শ আসনে বিএনপির প্রার্থী কে হতে পারেন, কোন আসনে বিএনপির প্রভাব বেশি- জরিপের মাধ্যমে তার তালিকা করে এসব আসনে আওয়ামী লীগের যোগ্য ও জনপ্রিয় প্রার্থীদের বাছাইয়ের কাজও চালিয়ে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন দলটি।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতিম-লীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, দল হিসেবে সব সময়ই নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি থাকে। আওয়ামী লীগ জন্মলগ্ন থেকেই নির্বাচনমুখী রাজনৈতিক দল। জনগণকে বিভ্রান্ত করতে বিএনপি যত কথাই বলুক না কেন, নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় তারা নির্বাচনে আসবে। অংশগ্রহণমূলক ও জনগণের জনমত প্রতিফলিত হোক- এমন নির্বাচন আমরা চাই।

 

তিনি আরো বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কোনো দল নির্বাচনে না এলে তো নির্বাচন বসে থাকবে না। তাই আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে আমরা কাজ শুরু করেছি এবং আমাদের দলকে তৃণমূল থেকে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু করে দিয়েছি। সরকারের উন্নয়ন-অগ্রগতিগুলো জনগণের সামনে তুলে ধরে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি করা হবে।

Spread the love

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2023
Theme Customized By BreakingNews